মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম, নিয়ত ও দোয়া

 প্রিয় পাঠক ও পাঠিকা আসসালামু আলাইকুম, আজকের আর্টিকেলের আলোচ্য বিষয় হলো মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম। আমরা অনেকেই জানি তাহাজ্জুদ নামাজের ফজিলত বা মুসলমানদের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ। সুতরাং আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনাদের মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম সম্পর্কে জানাবো।
মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম কে ৫টি ধাপে বিভক্ত করেছি যাতে আপনারা মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম সুন্দরভাবে বুঝতে পারেন। মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম এর অন্তর্ভুক্ত ধাপগুলো হল তাহাজ্জুদ নামাজের সময়, তাহাজ্জুদ নামাজ কত রাকাত, তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত, তাহাজ্জুদ নামাজের সূরা, তাহাজ্জুদ নামাজের মোনাজাত সম্পর্কে। তাহলে চলুন মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম এর পাঁচটি ধাপ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে আসি।

সূচিপত্রঃ মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম ৫টি ধাপ

তাহাজ্জুদ নামাজের সময়

মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম এর প্রথম ধাপটি হল তাহাজ্জুদ নামাজের সময়। কেননা তাহাজ্জুদ নামাজ পড়ার আগ্রহ প্রকাশ করলে আপনাকে সর্বপ্রথম তাহাজ্জুদ নামাজের সময় জানতে হবে। তাহলে চলুন তাহাজ্জুদ নামাজের সময় টা জেনে আসি-
প্রিয় দর্শক তাহাজ্জুদ নামাজের উত্তম সময় হল রাত্রি ১২টা হতে সুবহে সাদেক অর্থাৎ ফজরের নামাজের আগ মুহূর্ত পর্যন্ত তাহাজ্জুদ নামাজের সময়। এই সময়ের মধ্যে আপনি যে কোন সময় তাহাজ্জুদের নামাজ আদায় করতে পারেন। কেননা তাহাজ্জুদ নামাজ আদায়ের ক্ষেত্রে নির্ধারিত কোনো সময় নেই।

তাহাজ্জুদ নামাজ কত রাকাত

মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম এর দ্বিতীয় ধাপটি হলো তাহাজ্জুদ নামাজ কত রাকাত। উপরে আপনাদের তাহাজ্জুদ নামাজের সময় সম্পর্কে অবগত করা হয়েছে। আপনাদের তাহাজ্জুদ নামাজ কত রাকাত সে সম্পর্কে জানাবেন।

তাহাজ্জুদের নামাজ সুন্নতে মুয়াক্কাদা ৪ রাকাত হইতে ১২ রাকাত পর্যন্ত পড়া যায়। অর্থাৎ হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু কখনো ৪ রাকাত, কখনো ৮ রাকাত আবার কখনো ১২ রাকাত নামাজ আদায় করতেন। তাহাজ্জুদের নামাজ দুই দুই রাকাত করে পড়া বেশি উত্তম। 

তাছাড়া হযরত আয়েশা (রাঃ) থেকে বর্ণিতঃ "রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লা" ১১ রাকাত পড়তেন এবং এটাই ছিল তাঁর নামায। তিনি সিজদাকে এমনভাবে দীর্ঘ করতেন যে, মাথা তোলার আগে পঞ্চাশটি আয়াত (কুরআনের) তিলাওয়াত করতে পারতেন। তিনি ফজরের নামাযের পূর্বে ২ রাকাত (সুন্নাত) সালাত আদায় করতেন, অতঃপর তার ডান পাশে শুয়ে থাকতেন যতক্ষণ না আযানকারী এসে তাকে নামায সম্পর্কে অবহিত করেন। (বুখারী)

তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত

মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম এর তৃতীয় ধাপটি হল তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত। তাহাজ্জুদ নামাজের সময় এবং তাহাজ্জুদ নামাজ কত রাকাত জানার পর আপনাকে তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত সম্পর্কে অবগত হতে হবে। তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত সম্পর্কে অনেকেই আসা সম্ভব  হন, এই কারণে যে অনেকেই কুরআন পড়তে পারেন না ফলে তারা তাহাজ্জুদ নামাজের বাংলা নিয়ত ও তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত আরবিতে বাংলা উচ্চারণ তোকে জানতে চায়। তাই তাহাজ্জুদের নামাজের নিয়ত কে তিনটি অংশে বিভক্ত করেছি সেগুলো হল-
  • তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত আরবি
  • তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত আরবিতে বাংলা উচ্চারণ
  • তাহাজ্জুদ নামাজের বাংলা নিয়ত

তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত আরবি

ﻧَﻮَﺍﻳْﺖُ ﺍَﻥْ ﺍُﺻَﻠِّﻰَ ﻟِﻠَّّﻪِ ﺗَﻌَﺎﻟَﻰ ﺭَﻛْﻌَﺘَﻰْ ﺻَﻠَﻮﺓِ ﺍﻟﺘَّﻬَﺠُّﺪِ ﺳُﻨَّﺔُ ﺭَﺳُﻮْﻝِ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺗَﻌَﺎﻟَﻰ ﻣُﺘَﻮَﺟِّﻬًﺎ ﺍِﻟَﻰ ﺟِﻬَﺔِ ﺍﻟْﻜَﻌْﺒَﺔِ ﺍﻟﺸَّﺮِﻳْﻔَﺔِ ﺍَﻟﻠَّﻪُ ﺍَﻛْﺒَﺮُ
অর্থঃ আমি কিবলামুখী হয়ে আল্লাহর উদ্দেশ্যে দুই রাকাত তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করছি।আল্লাহু আকবার।

তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত আরবীতে বাংলা উচ্চারণ

নাওয়াইতু আন উসালি্লয়া লিল্লাহি তা’আলা রাকা’আতাই সালাতিল তাহাজ্জুদী সুন্নাতু রাসূলিল্লাহি তা’আলা মুতাওয়াজ্জিহান ইলাজিহাতিল কাবাতিশ শারীফাতি আল্লাহু আকবার।

তাহাজ্জুদ নামাজের বাংলা নিয়ত

"আমি কিবলামুখী হয়ে আল্লাহর উদ্দেশ্যে দুই রাকাত তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করছি।আল্লাহু আকবার" বলে নিয়ত বেঁধে নামাজ শুরু করা।

সুতরাং আপনি এখন নিশ্চয়ই তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ ধারণা পেয়েছে। আশা করি আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত পড়বেন তাহলে আপনি তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম সম্পর্কে সঠিক জ্ঞানটি অর্জন করতে পারবেন।

তাহাজ্জুদ নামাজের সূরা

পুরুষ ও মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম এর চতুর্থ ধাপটি হলো তাহাজ্জুদ নামাজের সূরা। তাহাজ্জুদ নামাজের নির্দিষ্ট কোন সূরা নেই। আপনি পাঁচ ওয়াক্ত নামাজের মতই যে কোন সূরা তাহাজ্জুদ নামাজের সূরা অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন। তাছাড়া মহানবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তাহাজ্জুদের নামাজে পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে বড় বড় সূরা গুলো দিয়ে তাহাজ্জুদের নামাজ আদায় করতেন।

তাই সবাইকে অনুরোধ করবো আপনাদের যদি সম্ভব হয় তবে পবিত্র কুরআনুল কারিমের বড় সূরাগুলো দিয়ে পড়তে পারেন। অন্যথায় আপনি যেকোনো সূরা দিয়ে তাহাজ্জুদের নামাজ আদায় করতে পারেন। তাছাড়া নিম্নে কিছু সূরা দেওয়া হল যা তাহাজ্জুদ নামাজের সূরা হিসেবে পড়তে পারেন।
  • সূরা আল-ইনশিরাহ (সূরা 94)
  • সূরা আল-দুহা (সূরা 93)
  • সূরা আল-ফাতিহা (সূরা 1)
  • সূরা আল-ইখলাস (সূরা 112)
  • সূরা আল-ফালাক (সূরা 113)
  • সূরা আন-নাস (সূরা 114)

তাহাজ্জুদ নামাজের মোনাজাত

পুরুষ বা মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম এর শেষ ধাপ হল তাহাজ্জুদ নামাজের মোনাজাত। তাহাজ্জুদ নামাজের মধ্যে বিশেষ উপস্থিতির সাথে আল্লাহ সুবহানুতালায় ব্যক্তিগত মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত অর্থবহির্ণ ভাষায় মানে হলো একা একা আল্লাহর সাথে যোগাযোগ করা। তাহাজ্জুদ নামাজের মোনাজাতে মুসলিম ভাইও বোনেরা আল্লাহ সুবহানুতালায় তাদের হৃদয়ের ভাষায় তাকিয়ে কোনো প্রকার দুয়া করতে পারে।
তাহাজ্জুদ নামাজের মোনাজাত অনেক বিষয়ে প্রার্থনা করা যায়, যেমনঃ আল্লাহর কাছে মাগফিরত, সন্তুষ্টি, দীর্ঘজীবন এবং জান্নাতে প্রবেশের অনুমতি প্রার্থনা করা হয়। এটি একটি খুব সমৃদ্ধ মোমিনের মাঝে আল্লাহর সাথে নিজের মধ্যে গোপন ভাষায় যোগাযোগ করার মৌলিক উপায়।

তাছাড়া তাহাজ্জুদ নামাজের মোনাজাত সম্পর্কিত রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম উনার কিছু হাদিস শরীফ:

আবু হুরাইরাহ (রা.) বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন, "আল্লাহ সুবহানহু ওয়া তাআলা যারা একাকী হয়ে তাহাজ্জুদ নামাজে উঠে আসেন, আমি তাদের মগফিরত করবো এবং তাদের জন্য সুখ ও সন্তুষ্টি প্রদান করবো।" (মুসলিম)

আয়েশা (রা.) বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন, "আল্লাহ সুবহানহু ওয়া তাআলা এই নিশ্বাস প্রদান করলেন যে, মানুষ যখন রাতের এবং দিনের অন্তর্ভুক্ত সময়ে দুই রক'আত নামাজ পড়ে, তাহলে আমি তাদের জন্য মাগফিরত করবো।" (মুসলিম)

আবু ধার (রা.) রিপোর্ট করেন, রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন, "মোনাজাতের সময় যখন তুমি তাহাজ্জুদ নামাজ পড়তে থাকো তখন এবং যখন তুমি সিজদার মধ্যে থাকো, তখন আল্লাহর কাছে তোমার জন্য কিছু মাগফিরতের দুয়া করো এবং আপনার বাপ, মা বা সাহবীগণের মগফিরতের দুয়া করো।" (ইবনে মাজাহ)

সুতরাং আপনি তাহাজ্জুদ নামাজের মোনাজাত এর সময় মন খুলে আল্লাহর কাছে যা খুশি চান।তাহাজ্জুদ নামাজের মোনাজাত নির্দিষ্ট কোন মোনাজাত নেই। তাই তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করে তাহাজ্জুদ নামাজের মোনাজাত এ আপনি আল্লাহর কাছে যা চাইবেন তাই পাবেন।

মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম গুলোর ধারাবাহিক বর্ণনা

উপরে মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম এর যে পাঁচটি ধাপ নিয়ে আলোচনা করা হলো সেগুলো ব্যবহার করে কিভাবে আপনি তাহাজ্জুদের নামাজ পড়বেন সেই বিষয়ে এখন আলোচনা করব। তাহলে চলুন যে না আসে মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের ধারাবাহিকভাবে পড়ার নিয়ম:
  • প্রথমে আপনাকে তাহাজ্জুদ নামাজ আদায়ের জন্য তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত করতে হবে এবং নিয়ত শেষে আমাদের জন্য হাত বাধঁতে হবে।
  • নিয়ত করে হাত বাধার পর পর আপনাকে "ছানা" পাঠ করতে হবে।
  • ছানা পাঠ করা শেষ হলে প্রথমে "সূরা ফাতিহা" পাঠ করবেন এবং সূরা ফাতিহা পাঠ করা শেষে অন্য যেকোনো সূরা পাঠ করবেন। যদি সম্ভব হয় তাহলে লম্বা সূরা পাঠ করবেন।
  • সূরা পাঠ করা শেষে রুকুতে যাবেন।
  • রুকু থেকে দাঁড়িয়ে আল্লাহর সন্তুষ্টির জন্য পরিষ্কার মনে আল্লাহর গায়েবী কদম মোবারকে সিজদা করবেন। 
  • এভাবেই দুই রাকাত করে আপনার যত ইচ্ছা আপনি তাহাজ্জুদের নামাজ আদায় করতে পারেন।
আশা করি এখন আপনাদের তাহাজ্জুদ নামাজ পড়ার নিয়ম নিয়ে কোন সমস্যা থাকার কথা না। যদিও সমস্যা হয় তবে আমাকে কমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন। ইনশাআল্লাহ আপনাদের সঠিক পরামর্শটি দেওয়ার চেষ্টা করব।

তাহাজ্জুদ নামাজ সুন্নত নাকি নফল

অনেকে প্রশ্ন করে থাকেন তাহাজ্জুদ নামাজ সুন্নত নাকি নফল। তাই আজ আপনাদের তাহাজ্জুদ নামাজ সুন্নত নাকি নফল সে সম্পর্কে জানাবো। তাহলে চলুন জেনে আসি তাহাজ্জুদ নামাজ সম্পর্কে বিস্তারিত-
নফল অর্থ অতিরিক্ত এবং সুন্নত অর্থ যা মহানবী হযরত মুহাম্মদ সাঃ করতেন। তাহাজ্জুদের নামাজ একদিক থেকে সুন্নত কারণ তাহাজ্জুদের নামাজ নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম। যার ফলে আমরাও তাহাজ্জুদের নামাজ পড়ে থাকি। তাহাজ্জুদ নামাজ পড়ার উদ্দেশ্য হল অতিরিক্ত সওয়াব হাসিল জন্য আদায় করে থাকে, এদিক থেকে তাহাজ্জুদের নামাজ নফল ইবাদত।

তাহলে আমি নিশ্চয় আপনাকে বোঝাতে সক্ষম হয়েছি যে তাহাজ্জুদ নামাজ সুন্নত নাকি নফল। আশা করি আর্টিকেলটি সম্পন্ন করবেন যার মাধ্যমে তাহাজ্জুদ সম্পর্কে পূর্ণাঙ্গ জ্ঞান আপনি অর্জন করতে পারবেন।

শেষ কথাঃ মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম

প্রিয় বন্ধুরা আশা করি আজকের আর্টিকেলটি পড়ার মাধ্যমে আপনি মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম সম্পর্কে সম্পূর্ণ ধারণা পেয়েছে। আজকের আর্টিকেলে যে বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে সেগুলো হল- মহিলাদের তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ম, তাহাজ্জুদ নামাজের নিয়ত, তাহাজ্জুদ নামাজ কত রাকাত, তাহাজ্জুদ নামাজের সময়, তাহাজ্জুদ নামাজের সূরা, তাহাজ্জুদ নামাজের মোনাজাত, তাহাজ্জুদ নামাজ সুন্নত নাকি নফল সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আশা করি আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত করবেন। এরকম আরো আর্টিকেল করতে আমাদের ওয়েবসাইট নিয়মিত ভিজিট করুন।

Popular posts from this blog

যৌন শক্তি বৃদ্ধির দোয়া - শারীরিক শক্তি বৃদ্ধির দোয়া

কি খেলে বীর্য অনেক ঘন হয় এবং দ্রুত বীর্য পাত বন্ধ হয়?

গণতন্ত্রের সুফল ও কুফল - গণতন্ত্রের বৈশিষ্ট্য